বগুড়ার ধুনটে কালাজ্বর নির্মূলের প্রস্তুতি

বগুড়ার সংবাদ

তারিকুল ইসলাম, ধুনটে (বগুড়া) প্রতিনিধি

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় কালাজ্বর নির্মূলের প্রস্তুতি হিসেবে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় কালাজ্বর কর্মসূচির আওতায় একদিনের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সম্মেলন কক্ষে উক্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, দেশের ৬২টি জেলার ১০০টি উপজেলায় কালাজ্বরে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে। এরমধ্যে ধুনট উপজেলাতেও কালাজ্বরের রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। তার নাম জালাল উদ্দিন। তিনি গোসাইবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। তাকে ঢাকা মহাখালী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে।

কালাজ্বর শব্দটি কালা এবং আজর এ দুটি শব্দ হিন্দি শব্দ থেকে এসেছে। কালা মানে কালো আর আজর মানে ব্যাধি। তাই যে রোগে ভুগলে শরীর কালো হয়ে যায় তাকেই কালাজ্বর বলা হয়। কালাজ্বরের বৈজ্ঞানিক সংজ্ঞা অবশ্য অন্যরকম। এক ধরণের পরজীবীর সংক্রমণে যে জ্বর হয় এবং যাতে প্লীহা ও যকৃত বেড়ে যায়, শরীরের রক্তকণিকাগুলো কমে গিয়ে রক্তস্বল্পতার সৃষ্টি করে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় চিকিৎসাশাস্ত্রে তাকে কালাজ্বর বলা হয়। অতি ক্ষুদ্র বালুমাছি কামড়ালে রোগীর শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে এই রোগ ছড়ায়।

কালাজ্বর ব্যবস্থাপনা বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মূল বিষয় উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সার্ভিলেন্স মেডিকেল অফিসার ডাঃ শারমিন আক্তার, ডাঃ তালিমা আফরিন ও আসাদুজ্জামান। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন ডাক্তার, সরকারি কর্মকর্তা, শিক্ষক, ইমাম, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, স্বাস্থ্য কর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। কালাজ্বরে আক্রান্ত রোগীদের ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাসেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *