ইউএনও সঞ্জয় কুমার মহন্তের উদ্যোগে ধুনটের পরিত্যক্ত পুকুর এখন বিনোদন কেন্দ্র

প্রধান খবর বগুড়ার সংবাদ

তারিকুল ইসলাম, ধুনট (বগুড়া):

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় দায়িত্ব নেওয়ার ৮মাসে জনগনের মাঝে ঠাঁয় করে নিয়েছেন জনবান্ধব উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সঞ্জয় কুমার মহন্ত। ধুনট উপজেলাকে মাদক, ঘুষ-দুর্নীতি মুক্ত একটি উন্নত আধুনিক জনপদ হিসেবে গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

সঞ্জয় কুমার মহন্ত গত (১০জুন ২০২০) বগুড়ার ধুনট উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ নেন। দায়িত্ব নেওয়ার পর ৮মাসে তাঁর সততা ও কর্মদক্ষতায় পাল্টে গেছে উপজেলা পরিষদের প্রশাসনিক কর্যক্রম ও সার্বিক চিত্র। সরকারি-বেসরকারি প্রতিটি দপ্তরের কর্মকাণ্ডে এসেছে গতিশীলতা ও স্বচ্ছতা। কমেছে জনভোগান্তি আর বৃদ্ধি পেয়েছে জনসেবার মান। দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথমে তিনি ধুনট শহরের ফুটপাতে অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করে যানজট শুন্যের কোটায় নামিয়ে এনেছেন। পাশাপাশি ধুনট শহরের সৌন্দর্য্যবর্ধনে শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত মুজিব চত্ত্বর নামক স্থানে ময়লা-আবর্জনায় ভোরে থাকা একটি পরিত্যক্ত পুকুর সংস্কারের কাজ শুরু করেছেন। পুকুর পাড় ঘেঁষে গড়ে উঠা অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করে সীমানা প্রাচীর নির্মান করে ভিতরে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগিয়ে সন্ধ্যার পর থেকে সেখানে করেছেন পর্যাপ্ত আলোক সজ্জার ব্যবস্থা। এরফলে, এ মুজিব চত্ত্বও ও পুকুরের সৌন্দর্য্য দেখতে প্রতিদিনই ছেলে মেয়েদের নিয়ে আসেন অভিভাবকেরা।

অন্যদিকে, উপজেলা পরিষদের ভিতরে অবস্থিত পুকুরের চার পাশে করা হয়েছে ওয়াকওয়ে। রাস্তার দুইপশে লাগানো হয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল গাছ। এতে উপজেলা পরিষদের ভিতরে সৌন্দর্য বর্ধিত হয়েছে। নিজ কার্যালয়ে সিসি ক্যামেরার স্থাপন করে পুরো উপজেলা পরিষদ চত্বরকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দিয়েছেন। এতে করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে কমে গেছে অপরাধীদের আনাগোনা। এছাড়াও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রচেষ্টা’র সহযোগীতায় ১ জানুয়ারি থেকে ধুনটের বিভিন্ন রাস্তার দুই পাশ পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ শুরু করেছেন। দাপ্তরিক কাজের বাইরে ছুটে বেড়ান মাঠ-ঘাট। খোঁজখবর নেন সমাজের অবহেলিত গরিব-দুঃখী মানুষের। কথা বলেন উপজেলার সাধারন মানুষের সাথে। শোনেন তাদের দুঃখ-কষ্টের কথা। পরিদর্শন করেন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও উপজেলার উন্নয়ন প্রকল্প। কোথাও কোনো সমস্যা দেখলে নেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা। কার্যালয়ে শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সত্যায়িত করতে আসলে তাদের গুরুত্ব দেন উপজেলা নির্বহী অফিসার সঞ্জয় কুমার মহন্ত।

এছাড়াও তিনি ব্যতিক্রমী আরেকটি উদ্যোগ নিয়েছেন আর তাহলো এ উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা সংগ্রহ করে তাদের জন্মদিনে পাঠান শুভেচ্ছা উপহার। সাথে সাথে মৃত মৃক্তিযোদ্ধাদের মৃত্যুদিনে তাদের নামে করেন দোওয়ার আয়োজন। এসব জনকল্যাণমুলক কাজ করে দক্ষ প্রশাসক হিসেবে উপজেলার সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ইউএনও সঞ্জয় কুমার মহন্ত নওগাঁ সরকারি ডিগ্রি কলেজ থেকে জিওলজি বিভাগ থেকে অনার্স মাস্টার্স সম্পন্ন করে ৩৩তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে উত্তীর্ণ হয়ে ২০১৪ চাঁদপুর জেলায় সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে যোগদান করেন। এরপর ২০১৬ সালে বগুড়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে তারপর গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলা ও রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভুমি) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ইউএনও সঞ্জয় কুমার মহন্ত নওগাঁ জেলার সদর থানার শৈলগাছী ইউনিয়নের শৈলগাছী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *