শেরপুরে জোরপূর্বক জায়গা দখল করে ঘর-বাড়ী নির্মাণ, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংঙ্কা

প্রধান খবর বগুড়ার সংবাদ

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:

বগুড়ার শেরপুরে জোরপূর্বক জায়গা দখল করে ঘর-বাড়ী নির্মান করায় আম্বইল গোড়তা এলাকায় সুমার ও শুক্কুর আলীর বিরুদ্ধে বুধবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ঐ এলাকার মেহেদী হাসান সোহাগ। এ ঘটনায় দুই পক্ষের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে এবং যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংঙ্কা রয়েছে।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, ভবানীপুর ইউনিয়নের আম্বইল-গোড়তা গ্রামের মৃত শাজাহান আলীর ছেলে আবু তাহের প্রায় ১৬ বছর আগে জমি ক্রয় করে। যার দাগ নং-৩৮২, খতিয়ান নং ৪৮১ জেএলনং ৭০, মৌজা: গোড়তা। কিন্তু, গত ২ বছর পূর্বে ভবানীপুর ইউনিয়নের নায়েব ভুল করে সাড়ে ২৮ শতকসহ এলাকার অনেক জমি খাস খতিয়ানের ভিতরে দিয়েছে। এ বিষয়ে আবু তাহেরের ছেলে মেহেদী হাসান সোহাগ বাদি হয়ে ঐ সাড়ে ২৮ শতক জমি ফিরে পেতে বগুড়া জজ কোর্টে মামলা দায়ের করে। মামলাটি বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন আছে। কিন্ত এর রায় না হতেই জমির দক্ষিণ পার্শে ও পশ্চিম পাশে দুইজন সিদ্দিক মোল্লার ছেলে সুমার আলী ও সাফীর ছেলে শুক্কুর আলীর বাড়ী থাকায় কিছু লোকজনকে টাকা দিয়ে জোড় পূর্বক গত ১০দিন ধরে বাড়ী-ঘর নির্মান করে। সেখানে মেহেদী হাসান সোহাগ তার ভাই সিহাব ও পিতা আবু তাহের ঘর তুলতে বাঁধা দিতে গেলে তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে জীবন নাশের হুমকি দেয়। এবং যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংঙ্কা রয়েছে। এমতবস্থায় তাদের জীবনের নিরাপত্তা ও জমি দখল মুক্ত করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। এ বিষয়ে সুমার আলীর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে, তার কোন বক্তব্য নেওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ময়নুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *