বগুড়ার শেরপুরে কমিউনিটি ক্লিনিক দিবস পালিত

বগুড়ার সংবাদ

মৌসুমী ইসলাম:

বগুড়ার শেরপুরে যথাযথ মর্যাদায় ২৯ টি কমিউনিটি ক্লিনিকে কমিউনিটি ক্লিনিক দিবস পালিত হয়েছে। ২৬ এপ্রিল সোমবার সকালে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারদের আয়োজনে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জানা যায়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিগত ২০০০ সালের ২৬ এপ্রিল গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতি ইউনিয়নের নিমাডাঙ্গা কমিউনিটি ক্লিনিকের শুভ উদ্বোধন করেন। যা ২০০১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত কার্যক্রম বন্ধ ছিল। ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হিসেবে পুনরুজ্জীবীত করণের প্রকল্প গ্রহন করেন। সেই দিন থেকেই প্রত্যেক বছর ২৬ এপ্রিল কমিউনিটি ক্লিনিক দিবস পালন করা হয়। এরই অংশ হিসেবে বগুড়ার শেরপুরে ছাতিয়ানী, ঝাঁজর, বিশালপুর, আমিনপুর, ভাটরা, উত্তর আমইন, কল্যানী কমিউনিটি ক্লিনিকসহ ২৯ কমিউনিটি ক্লিনিকে এই উদযাপন করা হয়েছে। এ সময় কমিউনিটি গ্রুপ, কমিউনিটি সাপোর্ট গ্রুপের সদস্য, স্বাস্থ্য পরিদর্শক, ও সাধারণ মানুষ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়।

উল্লেখ্য, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সদ্য স্বাধীন দেশের তৃনমূল পর্যায়ে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছানোর লক্ষ্যে কমিউনিটি ক্লিনিক ধারণার প্রবর্তন করেন। মাত্র সাড়ে তিন বছরেই দেশের সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে তদানীন্তন মহকুমা ও থানা পর্যায়ে স্বাস্থ্য অবকাঠামো গড়ে তুলেছিলেন। জাতির পিতার স্বপ্নকে আরও একধাপ এগিয়ে নেয়ার প্রয়াসে আওয়ামী লীগ সরকারের ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদের শুরুতেই প্রতি ৬ হাজার জনগোষ্ঠীর জন্য একটি করে দেশব্যাপী মোট ১৮ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সেই আলোকে ২০০০ সালের ২৬ এপ্রিল জাতির পিতার জন্মস্থান গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতী ইউনিয়নে আমি দেশের সর্বপ্রথম ‘গিমাডাঙ্গা কমিউনিটি ক্লিনিক’ প্রতিষ্ঠা করে এর শুভ সূচনা করে ২০০১ সালের মধ্যেই ১০ হাজার ৭ শত ২৩টি অবকাঠামো স্থাপনপূর্বক প্রায় ৮ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিকের কার্যক্রম চালু করে বর্তমান সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *