শেরপুরে বিপুল পরিমাণ টিসিবি পণ্যসহ ব্যবস্থাপককে আটক করলেন এসিল্যান্ড

প্রধান খবর বগুড়ার সংবাদ

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:

কালোবাজারে বিক্রি ও পাচারের সময় বগুড়ার শেরপুরে ট্রাক ভর্তি টিসিবির পণ্যসহ ডিলারের ব্যবস্থাপককে আটক করেছে স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরের দিকে উপজেলার গাড়ীদহ দশমাইল নামক স্থানে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে এই ঘটনা ঘটে। আটক ব্যক্তির নাম মো. উজ্জল হোসেন (৪৫)। তিনি উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের দশমাইল গ্রামের গাজিউর রহমানের ছেলে।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আটক ওই ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেইসঙ্গে টিসিবির ডিলার সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলা সদরের আব্দুল কাইয়ুমের নামীয় লাইসেন্স বাতিল করার জন্য সুপারিশ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিনের ভ্রাম্যমাণ আদালত এই দণ্ডাদেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, রমজানের শুরু থেকেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ তাদের নিয়োগ করা ডিলারের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে সাধারণ মানুষের মধ্যে টিসিবির পণ্য বিক্রি করছে। এরই ধারাবাহিকতায় টিসিবির ডিলার আব্দুল কাইয়ুম ন্যায্যমূল্যে বিক্রির জন্য বগুড়াস্থ আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে টিসিবির মালামাল ঠিকই উত্তোলন করেন। সরকারি এসব পণ্য রায়গঞ্জ উপজেলায় সাধারণ মানুষের মাঝে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করার কথা। কিন্তু ওই ডিলারের ব্যবস্থাপক উজ্জল হোসেন তা না করে টিসিবির বগুড়াস্থ ডিপো থেকে উত্তোলন করা মালামাল ট্রাকে ভরে শেরপুর উপজেলার গাড়ীদহ দশমাইল নামক স্থানে এনে কালোবাজারে বিক্রি করে দেন। অন্যত্র পাচারের জন্য ওই ট্রাক থেকে মালামালগুলো নামানো হচ্ছিল। এসময় স্থানীয় এলাকাবাসী ন্যায্যমূল্যে বিক্রির টিসিবির পণ্যসহ ডিলারের ব্যবস্থাপক উজ্জলকে আটক করেন। সেইসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানা পুলিশকে জানানো হয়। পরে ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপস্থিত হলে আটক ব্যক্তি ও টিসিবির মালামাল সোপর্দ করা হয়। পরে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত ৫০ হাজার টাকা জরিমানাসহ টিসিবির ওই ডিলারের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিন এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আটক ব্যক্তিকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ সালের ৪৫ ধারায় পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি ওই ডিলারের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছি। এছাড়া কালোবাজারে বিক্রি ও পাচারের সময় উদ্ধার হওয়া পাঁচশ’ সাতানব্বই কেজি চিনি, তিনশ’ নব্বই কেজি ডাল ও এক হাজার তিনশ ৬০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে বগুড়ায় টিসিবির কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *