কাজিপুরে বর্ষার আগমনে নৌকা তৈরির ধুম

জাতীয় প্রধান খবর

নাসিমা আক্তার, কাজিপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

বর্ষার আগমনে যমুনা নদীর পানি ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায় সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে স্থানীয় জেলেরা ও নদী তীরের লোকজন। প্রতি বছরের মতো এবারো বর্ষা মৌসুমে নতুন ঘর তৈরি ও পুরাতন ঘর মেরামত, বিভিন্ন আসবাবপত্র তৈরি করা ছেড়ে দিয়ে নৌকা তৈরিতে মহাব্যস্ত হয়ে পড়েছে তারা।

যমুনা নদী তীরবর্তী শুভগাছা এলাকার এক জেলে বর্ষা মৌসুমে নদীতে মাছ শিকারের জন্য ১২ হাত লম্বা একটি নতুন নৌকা তৈরি করছেন প্রায় ১০ হাজার টাকা খরচ করে। তিনি এক সুতার মিস্ত্রিকে আড়াই হাজার টাকা চুক্তিতে নৌকাটি তৈরি করার কাজ দেন। মাত্র চার’দিন সময়ে নৌকা তৈরির কাজ শেষ করেছেন তিনি। সুতার মিস্ত্রি শাহজাহান আলী জানান, প্রায় ৪০ বছর ধরে তিনি এ পেশায় জড়িত। যমুনা অববাহিকায় পলি বিধৌত কাজিপুর এলাকা মূলত একটি দ্বীপের মতো।

এখানকার মাটি যেমন উর্বর, তেমনি নদনদীতে রকমারি মাছের সমারোহ। চারদিকে যমুনা ও ইছামতি নদী বেষ্টিত হওয়ায় এখানে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করা জেলে সম্প্রদায়ের সংখ্যাই বেশি। এ কারণে বর্ষা মৌসুমে জেলেদের প্রধান অবলম্বন নৌকা তৈরিতে ধুম পড়ে যায়। কাজিপুরে বিভিন্ন গ্রামে বাজারে নতুন নতুন নৌকা তৈরি করা হচ্ছে। চরাঞ্চল জুড়ে গড়ে উঠেছে নৌকার সাম্রাজ্য।

স্থানীয় কয়েকজন নৌকা তৈরির সুতার জানান, যদি কোনো নৌকায় গাব, আলকাতরা ও আলপনার কারুকাজ থাকে তাহলে নৌকার দাম অনেক বেড়ে যায়। নৌকা বিক্রির সময় সাথে বৈঠা দেয়া হয় না। এটি আলাদা কিনতে হয়। এর মূল্য আবার ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। বর্তমানে কাঠ সঙ্কট, কাঁচামালের মূল্যবৃদ্ধি ও গ্রামাঞ্চলে নৌকার ব্যবহার কমে যাওয়ায় ভালো ব্যবসা করতে পারছে না নৌকা তৈরির কারিগররা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *