শেরপুরে ১০টাকার ‘নাপা’ ৩০ টাকায় বিক্রি; এসিল্যান্ডের হাতে ধরা!

বগুড়ার সংবাদ

মৌসুমী ইসলাম:

বগুড়ার শেরপুরে এক পাতা ‘নাপা’ ওষুধের দাম তিন গুণ বেশি নেয়ার দায়ে এক ফার্মেসি মালিককে অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়াও করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাবরিনা শারমিন।

(৩ জুলাই) শুক্রবার সকালে এসব অভিযান পরিচালনা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, বাজারে এক পাতা নাপা ট্যাবলেটের দাম ৮ থেকে ১০ টাকা নেয়া হয়। কিন্তু, এরই মধ্যে ফার্মেসি মালিকেরা কৃত্রিম সংকট তৈরি করে এক পাতা নাপা বিক্রি করছেন ৩০ টাকা করে। একই সঙ্গে নাপা-জাতীয় ওষুধের (নাপা এক্সটা, নাপা এক্সটেন্ড ও নাপা সিরাপ) দাম বেশি রাখা হচ্ছে।

এ অভিযোগে উপজেলার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কনক ফার্মেসিতে অভিযান চালানো হয়। ওই ফার্মেসিতে নাপা ট্যাবলেটের দাম বেশি রাখা হচ্ছিল। এ ছাড়া ওই ফার্মেসিতে ওষুধ থাকার পরও ক্রেতাদের কাছে অস্বীকার করা হচ্ছিল। পরে সুযোগ বুঝে বেশি দামে ওষুধ বিক্রি করছিল এই ফার্মেসি। এসব অপরাধে ফার্মেসির মালিককে ২ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এ সময় উপজেলার অন্যান্য ফার্মেসিতে অভিযান চালিয়ে ওষুধের দাম ও মজুত থাকা ওষুধের পরিমাণ যাচাই করা হয়। এ ছাড়াও করোনা সংক্রমণরোধে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে সকাল থেকেই অভিযান পরিচালনা করা হয়। সরকারি বিধিনিষেধ এবং স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গ করায় একই দিন তিনটি মামলায় আরও ২ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়।

অভিযান সম্পর্কে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাবরিনা শারমিন বলেন, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে ও জনস্বার্থে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *