বগুড়ার শেরপুরে জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বশুর নিহত

প্রধান খবর বগুড়ার সংবাদ

মৌসুমী ইসলাম:

বগুড়ার শেরপুরে জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বশুর নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) রাত ৯ টার দিকে উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের পারভবানীপুর গ্রামের আমতলা তিনমাথা এলাকায় এ খুনের ঘটনা ঘটে। জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে নিহত শ্বশুর আসাদুল ইসলাম (৪০) একই গ্রামের মৃত ফজলুল হকের ছেলে।

এলাকাবাসীসূত্রে জানা যায়,পারভবানীপুর গ্রামের শাহিন আকন্দের ছেলে সাব্বির হোসেনের সাথে আসাদুলের মেয়ে শিমুর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক বছর আগে আসাদুলের মেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে সাব্বিরকে বিয়ে করে। কিন্তু আসাদুল মেয়ে-জামাইকে মেনে নেয় না। বেশ কয়েক দফা দরবার করে ৪-৫ মাস পুর্বে আসাদুল জামাই মেয়েকে মেনে নেয়। এর কিছুদিন পর থেকেই জামাই সাব্বির হোসেন শ্বশুরের কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে। এ নিয়ে জামাই-শ্বশুরের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল।

বিষয়টি নিয়ে আবারও জামাই ও শ্বশুরের বিরোধ দেখা দেয়। এদিকে বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে স্থানীয় বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন আসাদুল ইসলাম। বাড়ির কাছাকাছি তিনমাথা নামক স্থানে পৌঁছামাত্র দাবিকৃত যৌতুকের টাকা নিয়ে জামাই-শ্বশুরের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়।

এ সময় জামাই সাব্বির শ্বশুর আসাদুলের বুকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডা: নাফিজা সুলতানা আসাদুল ইসলামকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। পাশাপাশি লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির বুকে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। এছাড়া ঘটনার পরপরই জামাই সাব্বির পালিয়ে যাওয়ায় তাকে ধরা সম্ভব হয়নি। তবে তাকে গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *