শেরপুরের রণবীরবালা-ফুলবাড়ি রাস্তাটি যেন মরণ ফাঁদ

প্রধান খবর বগুড়ার সংবাদ

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি:
জেলার শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের রণবীরবালা-ফুলবাড়ি বাজার রাস্তাটি যেন এক মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। মরণ ফাঁদ যেনেও জীবীকার তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ রাস্তায় চলাচল করছে ২০ টির অধিক গ্রামের হাজারো মানুষ।

সরেজমিনে গেলে স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, রাস্তাটির এই বেহাল অবস্থার কারণে জনবহুল এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কে যে কোন সময় ঘটতে পারে মর্মান্তিক দূর্ঘটনা। গত কয়েক দিন আগে উপজেলার রণবীরবালা গ্রামে রাস্তার শুরুতে একটি বৃহৎ গর্তের সৃষ্টি হয়। এরফলে বর্তমানে রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। আশংকা দেখা দিয়েছে যেকোন সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার।

ইতিমধ্যে রাস্তাটি ভেঙে প্রায় ৬-৭ ফুট গভীর খাদের সৃষ্টি হয়েছে। যারফলে, গত এক সপ্তাহ ধরে এই কৃষি নির্ভরশীল এলাকার এ রাস্তায় ছোট ছোট বাস-ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় বালির বস্তা দিয়ে পথচারী ও রিক্সা যাতায়াতের ব্যবস্থা করা গেলেও অসুস্থ রোগীসহ চলাচলরত মানুষদের জীবনের ঝুঁকি নিয়েই এ রাস্তায় যাতায়াত করতে হচ্ছে। সব্জি পরিবহণে কৃষকদের পড়তে হচ্ছে ঝক্কি-ঝামেলায়। এছাড়াও রাস্তাটির ছোট ফুলবাড়ি ইয়াকুব মোড়, মসজিদের উত্তর মোড়, করতোয়া নদীর পূর্বধারের শশ্মান মোড়সহ রাস্তাটির প্রায় ১৫টি স্থানে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থার বিরাজ করছে। যার ফলে, সীমাহীন দূর্ভোগে পড়েছে এলাকাবাসীর।

গাড়িদহ ইউপি চেয়ারম্যান মো.দবির উদ্দিন রাস্তাটি পরির্দশন করে বলেন, গত ১০ সেপ্টেম্বর শেরপুর উপজেলা পরিষদ সমন্বয় কমিটির সভায় ওই রাস্তার বিষয়টি উত্থাপন করেছি। উক্ত রাস্তা সংস্কারে মোটা অংকের টাকা প্রয়োজন। আর মোটা অঙ্কের টাকা বরাদ্দ পাওয়া সময় সাপেক্ষ হওয়ায় প্রাথমিক অবস্থায় রাবিস দিয়ে অস্থায়ী মেরামত করা হবে।

উল্লেখ্য, প্রায় একযুগ আগে উপজেলার ছোট ফুলবাড়ি গ্রামের কৃষি জমিতে ফসল উৎপাদনে স্বনির্ভরতা অর্জনের লক্ষ্যে স্থাপিত প্লান্টগুলো সরেজমিনে পরিদর্শনে আসে মার্কিন রাষ্ট্রদুত হুয়া-দু। সেসময় পজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের ছোটফুলবাড়ি গ্রামের মাটির রাস্তা হয়েই আসেন তারা। তার কাছে গ্রামবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে তিনি বগুড়া জেলা প্রশাসনকে রাস্তাটি পাঁকাকরণের অনুরোধ জানান। সে অনুযায়ী তৎকালীন বগুড়া জেলা প্রশাসকের নির্দেশে মাত্র আধা কিলোমিটার রাস্তা পাঁকা করন করা হয়েছিল। তারপর আরোও দুই কিলোমিটার রাস্তার কাজ করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *