ধুনটে নির্মাণের ৯ মাস পরই খালের পেটে সড়ক!

প্রধান খবর বগুড়ার সংবাদ

ধুনট প্রতিনিধি:
বগুড়ার ধুনটে অপরিকল্পিতভাবে সড়ক নির্মাণ করায় নির্মাণের ৯ মাসের মাথায় সড়কটি ভেঙে খালে পড়েছে। সুত্র জানায়, প্রায় ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলার সোনামুয়া হাট থেকে হাসাপোটল গ্রাম পর্যন্ত গত ৯ মাস আগে পাকা সড়কটি নির্মাণ করা হয়। উপজেলার কান্তনগর গ্রামের ভেতর দিয়ে অংশের সড়কের ৫০ মিটার অংশ ভেঙে খালে পড়ছে। নির্মাণের নয় মাসের মাথায় সড়ক ভেঙে খালে পড়ায় স্থানীয়দের মাঝে চরম চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় (ধুনট ) সূত্রে জানা যায়, সড়কটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৯০ লাখ টাকা। আর উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে এই কাজের দরপত্র আহব্বান করা হয়েছিল। (এলজিইডি)’র অর্থায়নে ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে সড়কটি পাকাকরণের কাজ শুরু হয়ে এক হাজার ৭৭০ মিটার দৈর্ঘ্য সড়কটির ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে শেষ হয়। সড়কটি নির্মানের সাথে সাথে উক্ত এলাকার গ্রামীণ অর্থনীতি চাঙ্গা অনেকটাই হয়ে উঠেছিল

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নব নির্মিত পাকা সড়কটির পাশ দিয়ে বহমান কান্তনগর খাল। সড়কটি পাকাকরণ কাজের সময় ভাঙনরোধে কোন বাঁধ (গাইডওয়াল) এর ব্যবস্থা করা হয়নি। ফলে খালের পাশে সুরক্ষা বাঁধ (গাইডওয়াল) না দিয়ে অপরিকল্পিতভাবে সড়ক নির্মাণ করায় সড়কটি টেকসই হয়নি।

তাছাড়াও গত সাত দিন ধরে চলমান অবিরাম বর্ষণের ফলে উপজেলার কান্তনগর গ্রামের সাইফুল ইসলামের বাড়ির সামনের সড়কটির অংশের প্রায় ৫০ মিটার ভেঙ্গে খালের পেটে পড়েছে। পাশাপাশি একই সড়কের আরো প্রায় ১৫০ মিটার অংশ ভেঙে পড়ার আশঙ্কায় রয়েছে। এরফলে এ সড়কে বর্তমানে আর কোন যান চলাচল করতে পারছে না। তবে গ্রামের কিছু মানুষ জীবীকার তাগিদে ঝুঁকি নিয়ে হেটে চলাচল করছে।

স্থানীয়রা জানান, গ্রামীণ এই সড়কটি দিয়ে প্রতিনিয়ত ১০ গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ চলাচল করে থাকে। তাছাড়াও এলাকাটি কৃষি সমৃদ্ধ হওয়ায় দেশের বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ীরা এই এলাকায় এসে কৃষিপণ্য কিনে নিয়ে যায়। সড়কটি ভেঙে পড়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মহা সংকটে পড়েছে ব্যবসায়ীরা। ফলে রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের দাবী করছেন এলাকাবাসী । তৎকালীন সড়কটির নির্মান কাজে দেখভালের দায়িত্বে থাকা এলজিইডির ধুনট উপজেলা সার্ভেয়ার সুলভ কুমার ঘোষের সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সড়কটি নির্মাণ কাজে কোন প্রকার ত্রুটি ছিলনা। বরং অনেক যত্ন নিয়ে করা হয়েছে। তার ভাষ্যমতে, স্থানীয়রা সড়কের পাশের খাল থেকে বালু উত্তোলন করায় সড়কটি ভেঙ্গে পড়েছে। অন্যদিকে অতি বর্ষণও রাস্তা ধসে পড়ার একটি কারণ। তবে শীঘ্রই সড়কের ক্ষতিগ্রস্থ স্থানটি মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ধুনট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই জানান, সড়ক ধসে পড়ার খবর পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। সড়কটি ভেঙ্গে পড়ায় এ পথে স্থানীয় লোকজনের চলাচলে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটি দ্রুত সংস্কাওে এলজিইডির প্রকৌশলীকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *